ক’রোনাভা’ইরাসে পরীক্ষায় প্র’তারণার অভিযোগে কিছুদিন গা ঢাকা দিয়ে থাকার পর বুধবার (১৫ জুলাই) র‌্যা’বের হাতে ধরা পড়েন রিজেন্ট গ্রুপ ও রিজেন্ট হাসপাতাল লিমিটেডের চেয়ারম্যান শাহেদ করিম ওরফে মো. শাহেদ।

এরপর বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) তাকে ১০ দিনের রি’মান্ড চেয়ে আ’দালতে হাজির করে ডি’বি।

আ’দালতে রি’মান্ড শুনানি চলাকালে কাঠগড়া থেকে বিচারকের উদ্দেশে শাহেদ বলেন, আমি কি একটা কথা বলতে পারি? এটি বলেই কাঠগড়ার ভে’তরে কা’ন্নাকাটি শুরু করেন শাহেদ।

তিনি বলেন, ‘আমি দেড় মাস ধরে ক’রোনায় আ’ক্রান্ত। আমার বাবা ক’রোনায় মা’রা গেছেন। আমি মার্চে প্রথম দিন যখন স্বাস্থ্য ম’ন্ত্রণালয়ে যাই, তখন তারা আমাকে আমার হাসপাতালের লাইসেন্স নবায়ন করতে বলেন। তখন আমি বলি আমার লাইসেন্সের ঘাটতি আছে।

তখন তারা বলে যে লাইসেন্স নবায়নের জন্য সোনালী ব্যাংকে টাকা জমা দেন। আমি তাদের কথা মতো টাকা জমা দেই। সারা দেশে ক’রোনা চিকিৎসার কাজ বেস’রকারিভাবে আমরাই শুরু করেছি। তারপরেও আমার সবগুলো প্রতিষ্ঠানকে সিলগালা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার শাহেদ, প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মাসুদ পারভেজ ও শাহেদের প্রধান সহযোগী তরিকুল ইসলাম ওরফে তারেক শিবলীকে আ’দালতে হাজির করে উত্তরা পশ্চিম থানায় দা’য়ের করা মা’মলার সুষ্ঠু ত’দন্তের জন্য প্রত্যেকের ১০ দিনের রি’মান্ড আবেদন করেন মা’মলার ত’দন্ত কর্মকর্তা ডি’বি পু’লিশের পরিদর্শক এস এম গাফফার আলম।

অপরদিকে তাদের আইনজীবীরা রি’মান্ড বাতিল চেয়ে জা’মিন আবেদন করেন। আ’দালত শুনানি শেষে শাহেদ-মাসুদ ১০ দিনের রি’মান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন আর তরিকুলের সাতদিনের রি’মান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন।

শাহেদ-মাসুদ ১০ দিনের রি’মান্ডে

আলোচিত রিজেন্ট গ্রুপ ও রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান শাহেদ করিম ওরফে মো.শাহেদের ১০ দিনের রি’মান্ড মঞ্জুর করেছেন আ’দালত। একই স’ঙ্গে রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদের প্র’তারণার অন্যতম সহযোগী গ্রুপটির এমডি মাসুদ পারভেজকেও ১০ দিনের রি’মান্ড মঞ্জুর করা হয়। এছাড়া শাহেদের প্রধান সহযোগী তরিকুলের ৭ দিনের রি’মান্ড মঞ্জুর করেছেন আ’দালত।

বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) বেলা ১১টায় ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) মোহাম্ম’দ জসিম এ রি’মান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন। এর কিছুক্ষণ আগে ডি’বি কার্যালয় থেকে শাহেদকে আ’দালতে হাজির করে ১০ দিনের রি’মান্ড আবেদন করা হয়। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্ম’দ জসিম এ আদেশ দেন।

ক’রোনা পরীক্ষার ভুয়া রিপোর্ট দেয়ার অভিযোগে রিজেন্ট চেয়ারম্যান শাহেদ করিমকে গত বুধবার (১৫ জুলাই) সাতক্ষীরা থেকে গ্রে’ফতার করে র‍্যা’ব।

ক’রোনা পরীক্ষা না করেই সার্টিফিকেট দেয়াসহ নানা প্র’তারণার অভিযোগে রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মো. শাহেদ করিমকে প্রধান আ’সামি করে ১৭ জনের নামে গত ৭ জুলাই উত্তরা পশ্চিম থানায় মা’মলা করে র‌্যা’ব। সেই মা’মলায় মা’মলায় তাকে গ্রে’ফতার করা হয়। এ মা’মলায় গ্রে’ফতার হয়ে কা’রাগারে আছেন আট আ’সামি।

এর আগে গত ৬ জুলাই রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুর কার্যালয়ে অ’ভিযান চা’লায় র‌্যা’ব। পরীক্ষা ছাড়াই ক’রোনার সনদ দিয়ে সাধারণ মানুষের স’ঙ্গে প্র’তারণা ও অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছিল তারা। র‌্যা’বের ভ্রাম্যমাণ আ’দালতের অ’ভিযানে অন্তত ৬ হাজার ভুয়া ক’রোনা পরীক্ষার সনদ পাওয়ার প্রমাণ মেলে।

এর পরদিন ৭ জুলাই স্বাস্থ্য অধিদফতরের নির্দেশে র‌্যা’ব রিজেন্ট হাসপাতাল ও তার মূ’ল কার্যালয় সিলগালা করে দেয়। একই স’ঙ্গে প্র’তারণার অভিযোগে রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান শাহেদসহ ১৭ জনের বি’রুদ্ধে ওই দিনই উত্তরা পশ্চিম থানায় নিয়মিত মা’মলা করে র‌্যা’ব।

এরপর গত ১৩ জুলাই অর্থ আত্মসাতের পৃথক দুই মা’মলায় শাহেদের বি’রুদ্ধে গ্রে’ফতারি পরোয়ানা জারি করেন আ’দালত।

এদিকে সাতক্ষীরায় শাহেদের বি’রুদ্ধে অ’স্ত্র আইনে মা’মলা করেছে র‌্যা’ব। সাতক্ষীরার দেবহাটা থানায় শাহেদ করিমসহ তিন জনকে আ’সামি করে বুধবার রাতে মা’মলাটি করেন সাতক্ষীরা র‌্যা’ব ক্যাম্পের ডিএডি নজরুল ইসলাম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here