মু’সলিমবিদ্বেষী বক্তব্য ও মু’সলিমবিদ্বেষী হীনকর্মকাণ্ডকে উস্কে দেওয়ায় ফ্রান্সের প্রে’সিডেন্ট এমমানুয়েল ম্যাক্রোঁর ‘মা’নসিক পরীক্ষার দরকার’ বলে মন্তব্য করেছেন তুরস্কের প্রে’সিডেন্ট ও মু’সলিম বিশ্বের প্রভাবশালী নেতা রজব তাইয়েব এরদোগান।

তিনি বলেন, এমন একজন রাষ্ট্রপ্রধানের বি’ষয়ে কী বলতে পারেন যিনি ভিন্ন ধর্মগোষ্ঠীর লাখ লাখ মানুষের মানুষের প্রতি এমন (বিদ্বেষমূ’লক) আচরণ করেন। প্রথমত, তার মা’নসিক পরীক্ষা করা উচিত।

শনিবার (২৪ অক্টোবর) টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন। খবর এএফপির।

এর আগে ফ্রান্সের একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মহানবী মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহী ওয়া সাল্লামের অবমাননাকর কার্টুন প্রকাশ করার প্র’তিবাদ হিসেবে ১৮ বছর ব’য়সী এক যুবক ইসলাম বিদ্বেষী ওই শিক্ষকের শিরচ্ছেদ করে। ইসলাম বিদ্বেষী শিক্ষকের পক্ষে সাফাই গেয়ে ফ্রান্সের প্রে’সিডেন্ট ম্যাক্রোঁ ইসলাম নিয়ে অবমাননাকর কার্টুন প্রকাশ বন্ধ করবে না বলে মু’সলিমবি’রোধী কর্মকাণ্ডকে রাষ্ট্রীয়ভাবে উস্কে দেয়।

মাক্রোঁর পরিকল্পনা হলো, আগামী ডিসেম্বরে তার স’রকার একটি বিল আনবে। যার উদ্দেশ্য হলো-মসজিদে বিদেশি অর্থ আসা নি’য়ন্ত্রণ করা এবং ইসলামী শিক্ষা ব্যবস্থার বি’ষয়ে হস্তক্ষেপ করা।

সম্প্রতি ফ্রান্স প্রে’সিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ দাবি করেন, ধর্ম হিসেবে ইসলাম আজ বিশ্বজুড়ে সং’কটে রয়েছে। শুধুমাত্র যে আমাদের দেশেই যে এই ধরনের ঘ’টনা চোখে পড়ছে তা কিন্তু নয়।

নতুন করে অ’ভিযান চা’লিয়ে দেশের শিক্ষাব্যবস্থা ও পাবলিক সেক্টর থেকে ধর্মকে সরিয়ে দেওয়া হবে। নিরপেক্ষ ভাবমূর্তি বজায় রাখার জন্য যেসব স্কুল ও মসজিদ বিদেশে থেকে টাকা পায় তাদের ও’পর কড়া নজরদারি চলবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here