করোনাভাইরাসের চরম ঝুঁ’কিতে পড়তে যাচ্ছে ভারত। মুম্বাইয়ে এশিয়ার বৃহত্তম বস্তিতে প্রা’ণঘা’তী করোনাভাইরাসে এক ব্যক্তির মৃ’ত্যুর পর দেশটির শীর্ষস্থানীয় চিকিৎসকরা সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, করোনার সম্ভাব্য ব্যাপক সংক্রমণ ঠেকানোর জন্য ভারতকে অবশ্যই প্রস্তুতি নিতে হবে। এখনই যথাযথ পদক্ষেপ না নেয়া হলে করোনায় মৃ’ত্যুপরী ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্রকে ছাড়িয়ে যেতে পারে ভারত।

ভারতে করোনাভাইরাস সংক্রমিত কোভিড-১৯ রোগে আ’ক্রান্ত রো’গীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে প্রা’ণঘা’তী এ ভাইরাসে ৫২৫ জন আ’ক্রান্ত হয়েছে, আর এতে মৃ’ত্যু হয়েছে ১৩ জনের।দেশটিতে লাফিয়ে লাফিয়ে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে। ৩ দিনে দ্বিগুণ মানুষ আ’ক্রান্ত হয়েছে।

ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বর্তমানে দেশটিতে সবমিলিয়ে করোনা আ’ক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৭২ জন। এর মধ্যে মোট ৭৫ জনের মৃ’ত্যু হয়েছে।

এতে বলা হয়, জুনের শেষ সপ্তাহ অথবা সেপ্টেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহ পর্যন্ত দেশটিতে লকডাউন চলতে পারে। রোববার রাত ৯টা থেকে ৯ মিনিটের জন্য বাড়িঘরের আলো নিভিয়ে রাখার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

বাড়িতেও দূরত্ব বজায় রেখে দুই সপ্তাহ চলার পরামর্শ দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্য অনুযায়ী, শনিবার বিকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত দেশটিতে করোনাভাইরাসে ৮৬ জন মা’রা গেছেন এবং তিন হাজার ৮২ জন আ’ক্রান্ত হয়েছেন। খবর সিএনএন, আনন্দবাজার, খবর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস ও এনডিটিভির।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশটিতে আ’টকা পড়া ফ্রান্সের ১১২ নাগরিককে এয়ার ইন্ডিয়ার একটি বিশেষ বিমানে শনিবারই (৪ এপ্রিল) প্যারিসে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তারা বেড়াতে এসে কোচি, বেঙ্গালুরু এবং মুম্বাইয়ের বিভিন্ন জায়গায় আ’টকা পড়েছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here