সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মঈন উদ্দিনের ইন্তিকালে গভীর শো’ক প্রকাশ করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর ডা. শফিকুর রহমান ১৫ এপ্রিল এক শো’কবাণী প্রদান করেছেন।

শো’কবাণীতে তিনি বলেন, “ডা. মঈন উদ্দিন বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথম করোনা যোদ্ধা যিনি করোনা ভাইরাসে আ’ক্রান্ত রো’গীদের চিকিৎসা সেবা দিতে গিয়ে নিজেই করোনা ভাইরাসে আ’ক্রান্ত হয়ে জীবন দিলেন।
তিনি গত ৫ এপ্রিল করোনা ভাইরাসে আ’ক্রান্ত হয়ে সিলেটের একটি স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি হন। পরবর্তীতে অবস্থার অবনতি হলে পরিবারের লোকজন তাকে ঢাকায় নিয়ে আসার চেষ্টা করলেও যথাসময়ে এ্যাম্বুলেন্স পাওয়া যায়নি এবং সরকারের পক্ষ থেকে এয়ার এ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করা হয়নি।

তিনি সিলেটের একজন জনপ্রিয় ডাক্তার ছিলেন যাকে সবাই মানবিক ডাক্তার বলে আখ্যায়িত করে থাকেন। মানবতার সেবায় তিনি সদা তৎপর ছিলেন। করোনা ভাইরাসে আ’ক্রান্ত রো’গীর সেবা দিয়ে নিজের জীবন উৎসর্গ করার মাধ্যমে তিনি একটি ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন। বাংলাদেশের চিকিৎসা সেবার ইতিহাসে তিনি স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

জাতি তাকে করোনা যোদ্ধা হিসেবে স্মরণ করবে। করোনা ভাইরাসে আ’ক্রান্ত রো’গীদের চিকিৎসা সেবা দিতে গিয়ে নিজের জীবন উৎসর্গ করার কারণে তাকে জাতীয় বীর ঘোষণা করার জন্য আমরা সরকারের প্রতি আহবান জানাচ্ছি। তার অ’সহায় পরিবারের পাশে দাঁড়ানো রাষ্ট্রের দায়িত্ব বলে আমরা মনে করি।

আমি মহান আল্লাহর নিকট আন্তরিকভাবে দোয়া করছি তিনি যেন তাকে শহীদ হিসেবে কবুল করেন। তার জীবনের সকল নেক আমল কবুল করেন।
আমি তার শো’ক-সন্তপ্ত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। আল্লাহ তায়ালা তাদেরকে এ শো’ক সহ্য করার তাওফিক দান করুন।

অপর এক বিবৃতিতে বিশিষ্ট চিকিৎসক বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর ডা: সৈয়দ আব্দুল্লাহ মোঃ তাহের বলেন, ডা: মঈন উদ্দিন বাংলাদেশের প্রথম চিকিৎসক যিনি করোনা আ’ক্রান্ত রো’গীর সেবা দিতে গিয়ে নিজের জীবন উৎসর্গ করেছেন।

তাকে করোনা যোদ্ধা হিসেবে জাতীয় বীরের মর্যাদা দেয়ার জন্য আমি সরকারের প্রতি আহবান জানাচ্ছি। ডা: মঈন চিকিৎসা সেবায় নিজের জীবন দিয়ে যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন তা এ পেশায় নিয়োজিত চিকিৎসকদের যুগ যুগ ধরে অনুপ্রেরণা যোগাবে। তার পরিবারের যাবতীয় দায়িত্ব নেয়ার জন্য আমি সরকারের প্রতি আহবান জানাচ্ছি। আল্লাহ তাকে শাহাদাতের মর্যাদা দান করুন।”

মুজিবুর রহমান পেশওয়ারীর ইন্তিকালে গভীর শো’ক
২০-দলীয় জোটের শরীক দল খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর মাওলানা মুজিবুর রহমান পেশওয়ারীর ইন্তিকালে গভীর শো’ক প্রকাশ করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমীর ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান ১৫ এপ্রিল ২০২০ এক শো’কবাণী প্রদান করেছেন।

শো’কবাণীতে তিনি বলেন, মাওলানা মুজিবুর রহমান পেশওয়ারী (রাহিমাহুল্লাহ) এর ইন্তিকালে আমরা ইসলামী আন্দোলনের একজন নিবেদিত প্রা’ণ সহকর্মীকে হারালাম। তিনি দেশে ইসলামী আন্দোলনের প্রচার-প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে গিয়েছেন। মহান আল্লাহ তার সকল খেদমত কবুল করুন।

শো’কবাণীতে তিনি আরো বলেন, আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা মাওলানা মুজিবুর রহমান পেশওয়ারীকে ক্ষমা ও রহম করুন এবং তার কবরকে প্রশস্ত করুন। তার গুণাহখাতাগুলোকে ক্ষমা করে দিয়ে নেকিতে পরিণত করুন। তার জীবনের নেক আমলসমূহ কবুল করে তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসে স্থান দান করুন।
শো’কবাণীতে তার শো’ক-সন্তপ্ত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে তিনি বলেন, আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা তাদেরকে এ শো’কে ধৈর্য ধারণ করার তাওফিক দান করুন।

সৌদিতে কাবা ইমামের নেতৃত্বে করোনা রো’গীদের জন্য জমজমের পানি বিতরণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক । বাংলালাইভ২৪.কম
সামাজিক ও জাতীয় দায়িত্ববোধ থেকে হারামাইন প্রেসিডেন্সির প্রধান প্রফেসর ড. শায়েখ আবদুর রহমান বিন আব্দুল আজিজ আস সুদাইস করোনাভাইরাসে আ’ক্রান্তদের জন্য জমজমের পানি সরবরাহের নির্দেশ দিয়েছেন।

শায়েখ সুদাইসের ঘোষণার পর থেকে সৌদি আরবের বিভিন্ন হাসপাতালে করোনায় আ’ক্রান্ত রো’গীদেরকে জমজমের পানি সরবরাহ শুরু হয়েছে। এছাড়া মক্কা ও মদিনা অধিদপ্তরও তাদের নিজস্ব তত্ত্বাবধানে করোনায় আ’ক্রান্ত রো’গীদের জন্য জমজমের পানি বিতরণ করছেন।

সম্প্রতি মদিনা সফরকালে সেখানে কর্তব্যরত নিরাপত্তারক্ষীদের মাঝে জমজমের পানি বিতরণ করেন হারামাইনের প্রেসিডেন্ট শায়েখ সুদাইস।

উল্লেখ্য, জমজম মসজিদে হারামের কাছে অবস্থিত একটি প্রসিদ্ধ কূপ। পবিত্র কাবা ও এই কূপের মধ্যে দূরত্ব মাত্র ৩৮ গজের। হজ ও উমরা আদায়কারীর জন্য বিশেষভাবে এবং পৃথিবীর সব মুসলমানের জন্য সাধারণভাবে জমজমের পানি পান করা মুস্তাহাব। সহিহ হাদিসে ইরশাদ হয়েছে, নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম নিজে জমজম থেকে পানি পান করেছেন। -সহিহ বোখারি: ১৫৫৬

সাহাবি হজরত আবু জর (রা.) বর্ণনা করেন, নবী করিম (সা.) বলেছেন, ‘জমজমের পানি বরকতময়, স্বাদ অন্বেষণকারীর খাদ্য।’ -সহিহ মুসলিম: ২৪৭৩

কোনো কোনো হাদিসে জমজমের পানিকে ‘রো’গীর ঔষধ’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। আম্মাজান হজরত আয়েশা (রা.) বর্ণনা করেন, হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) নিজের সঙ্গে পাত্রে ও মশকে করে জমজমের পানি বহন করতেন। তা অ’সুস্থদের ওপর ছিটিয়ে দিতেন এবং তাদের পান করাতেন। -সুনানে তিরমিজি

এ বর্ণনা থেকে এ কথাও জানা যায় যে, জমজমের পানি বহন করা জায়েজ। আর যারা জমজম কূপের কাছে নয়, তাদের পান করানো নববী সুন্নত।

জমজমের পানি পান করার সময় একটি বড় কাজ হলো- দোয়া করা। হজরত জাবির (রা.) বর্ণনা করেন, হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘জমজমের পানি যে উদ্দেশ্য নিয়ে পান করবে তা পূরণ হবে।’ -সুনানে ইবনে মাজাহ: ৩০৬২

বিখ্যাত বুজুর্গ ও মনীষীরা জমজমের পানি পানের সময় বিভিন্ন দোয়া করতেন।

আরো পড়ুন: করোনাক্রান্ত যুক্তরাষ্ট্রে ২৪ ঘণ্টায় ৪১বার ভ’য়াবহ টর্নেডোর আ’ঘাত, নি’হত ৩৩ !

একদিকে নভেল করোনাভাইরাসের হানায় মৃ’ত্যু উপত্যকায় পরিণত হয়েছে গোটা যুক্তরাষ্ট্র, তার মধ্যেই দেশটির দক্ষিণাঞ্চলে তাণ্ডব চালিয়েছে শক্তিশালী টর্নেডো। এতে প্রা’ণ হারিয়েছেন কমপক্ষে ৩৩ জন, বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন ১০ লাখেরও বেশি মানুষ।

গত রোববার দিনের শুরু থেকেই মধ্য টেক্সাসে আ’ঘাত হানতে শুরু করে টর্নেডো। সেখানে ব্যাপক ধ্বং’সযজ্ঞ চালিয়ে এটি একে একে লুইজিয়ানা, আরাকানসাস, মিসিসিপি, টেনেসি, আলাবামা, জর্জিয়া ও ক্যারোলিনার ওপর দিয়ে যায়। এর আ’ঘাতে শুধু মিসিসিপি অ’ঙ্গরাজ্যেই প্রা’ণ হারিয়েছেন ১১ জন।

এছাড়া দক্ষিণ ক্যারোলিনায় মা’রা গেছেন নয়জন। সেখানে ঝড়ের আ’ঘাতে উপড়ে পড়েছে অসংখ্য গাছপালা। মিসিসিপি, লুইজিয়ানা, আলাবামার গভর্নরেরা অ’ঙ্গরাজ্যগুলোতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় এ অঞ্চলে অন্তত ৪১বার টর্নেডো আ’ঘাত হেনেছে বলে জানা গেছে।

সোমবার সকালেও উত্তর ফ্লোরিডা, ভার্জিনিয়া ও ক্যারোলিনায় বেশ কয়েকবার ঝড়-বজ্রঝড় আ’ঘাত হেনেছে। নিউ জার্সি থেকে ফ্লোরিডায় ব্যাপক ঝড় ও নিউ ইংল্যান্ডে ভারী বর্ষণ অব্যাহত থাকায় মা’রাত্মক ঝুঁ’কিতে রয়েছেন এ অঞ্চলের অন্তত চার কোটি মানুষ।

এছাড়া মিসিসিপি নদীর তীরবর্তী ১৬ কোটি বাসিন্দাকেও সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। করোনার হানায় বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বি’পর্যস্ত যুক্তরাষ্ট্র। এ পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় আ’ক্রান্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৮১ হাজার ৯১৮ জন, মৃ’তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৩ হাজার ৬০৮।

এই মহামারির কারণে ইতিহাসে প্রথমবার একসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি অ’ঙ্গরাজ্যেই বিপর্যয় ঘোষণা করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here