করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে সাধারণ মানুষকে ঘরে থাকার আহ্বান জানাতে সারা দেশের রাজপথে জীবনের ঝুঁ’কি নিয়ে কাজ করছেন পু’লিশ সদস্যরা।

নিজেদের রুটিন কাজের পাশাপাশি লকডাউনের মতো এই দমবন্ধ পরিস্থিতিতে বাইরে ঘুরতে বেড়িয়ে পড়া হাজার হাজার মানুষকে অনুরোধ করে, এমনকি কিছু কিছু ক্ষেত্রে প্রেরণাদায়ক গানে উজ্জীবিত করে মানুষদের ঘরে রাখতে কাজ করে যাচ্ছেন বাংলাদেশ পু’লিশ।

পু’লিশের সব মহৎ উদ্যোগে পাশে থাকার পদক্ষেপ হিসেবে যমুনা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শামীম ইসলাম ও যমুনা বিল্ডার্সের পরিচালক (সেলস এন্ড মার্কেটিং) ড. মোহাম্মদ আলমগীর আলম মহা-পু’লিশ পরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদের কাছে ৫০ হাজার পিস স্বাস্থ্যসুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করেন।

যার মধ্যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মানদ’ণ্ড অনুযায়ী ঔষধ প্রশাসনের অনুমোদনক্রমে যমুনা গ্রুপের নিজস্ব ফ্যাক্টরিতে প্রস্তুতকৃত যমুনা হ্যান্ড স্যানিটাইজার ছিল ৩০ হাজার পিস ও ফেস মাস্ক ছিল ২০ হাজার পিস।

এ সময় যমুনা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শামীম ইসলাম আইজিপিকে জানান, দেশের এই মহাদুর্যোগে বাংলাদেশ সরকার, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, সে’নাবা’হিনী, পু’লিশ ও র‌্যা’বের সব মহৎ উদ্যোগে যমুনা গ্রুপ পাশে থাকবে।

আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ যমুনা গ্রুপ কর্তৃপক্ষকে দেশের এই মহাদুর্যোগে সরকারের প্রতি সহযোগিতার হাত নিয়ে এগিয়ে আসার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

তিনি বলেন, যমুনা গ্রুপ যেভাবে ব্যাপক পরিসরে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে তা দেশের সব কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানের জন্য অনন্য উদাহরণ এবং দেশের মানুষ এভাবেই দেশের সব দুর্যোগে ও সংকটে যমুনা গ্রুপকে এভাবেই পাশে পেতে চায়।

উল্লেখ্য, যমুনা গ্রুপ ইতিপূর্বে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ১০ কোটি টাকা, সরকারি হাসপাতালগুলোতে দেয়ার জন্য ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরে ৮ হাজার ১৬ পিস পিপিই, ১০ হাজার ৫৬ পিস যমুনা হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও ১৫ হাজার পিস ফেস মাস্ক, বাংলাদেশ সে’নাবা’হিনীকে ৫ হাজার পিস পিপিই, ১০ হাজার ৫৬ পিস যমুনা হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও ২০ হাজার পিস ফেস মাস্ক এবং র‌্যাপিড অ্যা’কশন ব্যাটালিয়নকে (র‌্যা’ব) ১৫ হাজার পিস যমুনা হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও ১০ হাজার পিস ফেস মাস্ক বিনামূল্যে সরবরাহ করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here